জুয়েল রানা : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষা সাময়িক স্থগিত করে সার্কুলার জারি করা হয়ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম সন্ধ্যায় নিউজবাংলাকে বলেন, অনলাইনে চলমান ক্লাসগুলো চলবে। সরকারি নির্দেশে আবাসিক হল বন্ধ থাকায় পরীক্ষা দিতে আসা ছাত্রদের থাকা এবং নিরাপত্তা সংকট দেখা দিয়েছে। এ কারণে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সকল পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে।
এর আগে আবাসিক হল খুলে দেয়াসহ নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে শিক্ষার্থীরা। সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে সোমবার বেলা সাড়ে ১১টায় ক্যাম্পাসের ডায়না মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়।

মিছিলটি বিভিন্ন স্লোগানে ক্যাম্পাস প্রদর্শন শেষে প্রশাসনিক কার্যালয়ের সামনেসহ পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন হলের সামনে অবস্থান নেয়। আবাসিক হল খুলে না দিলে কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দিয়ে শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল কর্মকাণ্ড চলছে। শুধু আবাসিক হল বন্ধ থাকায় তাদের শিক্ষাজীবন প্রায় স্থবির হয়ে পড়েছে। বেশির ভাগ শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসে চলে এসেছেন এবং হল বন্ধ থাকায় তারা মেসে থাকতে শুরু করেছেন। হলের বাইরে থাকায় নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কার মধ্যে রয়েছে শিক্ষার্থীরা। তাই খুব দ্রুত হল খুলে না দেয়া হলে শিক্ষার্থীরা লাগাতার আন্দোলন করার ঘোষনা দেন। দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসসর ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলন যৌক্তিক। আমরা আবাসিক হল খোলার ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় আছি। বিষয়টি আমরা শিক্ষা মন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। মন্ত্রালয়ের নির্দেশনা পেলেই আমরা আবাসিক হলগুলো খুলে দিব।

এদিকে ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সিদ্ধান্ত মেনে নেননি আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তারা আগামীকাল ২৩ ফ্রেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা দেবেন বলে জানিয়েছেন। আন্দোলনরত শিক্ষার্থী আশিক ইসলাম বলেন, শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা পুনবিবেচনা না করা হলে কঠোর আন্দোলনের ঘোষণা দেবেন তারা।

error: Content is protected !!