কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার গ্রামে ঘরে লাগা আগুনে দগ্ধ হয়ে প্রতিবন্ধী এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। নিহত বৃদ্ধার নাম মাহিরন খাতুন (৭০)। তিনি কুমারখালী উপজেলা গোবিন্দপুর গ্রামে মৃত মসলেম শেখের স্ত্রী এবং ৮ সন্তানের জননী। মেজো ছেলের বাড়িতে তিনি থাকতেন। রোববার দুপুরে উপজেলার ঈশ্বরদী গ্রামের ভ্যান চালক ওবায়দুরের রান্না ঘরে আগুনের সূত্রপাত হয়। এ সময় প্রতিবন্ধী বৃদ্ধা মাহিরন খাতুন রান্না ঘরের বারন্দায় বসে ছিলেন। মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পরে। গ্রামবাসী ও খোকসা ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট চেষ্টা করে আগুন নেভাতে সক্ষম হয়। কিন্তা তার আগেই প্রতিবন্ধী বৃদ্ধা মাহিরন অগ্নিদগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। নিহতের পুত্রবধূ কুলসুম জানান, রাতে শেহেরী রান্না করা হয়। কিন্তু তার বাড়িতে আগুন লেগেছে দুপুরের পর। কিভাবে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হলো তা তিনি বুঝে উঠতে পারছেন না। ঘটনার সময় তিনি মাঠে ছাগল আনতে গিয়েছিলেন। নিজের বাড়ির আগুন দেখে দৌড়ে বাড়ি ফিরে আসেন, কিন্তু তার আগেই শ্বাশুরী পুড়ে অঙ্গার হয়ে যান। কুমারখালী উপজেলার গবিন্দপুরে স্বামীর কবরের পাশে বৃদ্ধাকে দাফন করা হয়েছে। থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার অগ্নিদগ্ধ হয়ে বৃদ্ধার মৃত্যুও বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ব্যাপারে থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

 

error: Content is protected !!