নিজস্ব প্রতিনিধি : সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে জাল টাকা সরবরাহের ব্যাপক হিড়িক লেগেছে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের র‌্যাবের একটি চৌকষ অভিযানিক দল উক্ত বিষয়ের উপর নিরিব নজরদারী সহ অধিকতর গোয়েন্দ তৎপর বৃদ্ধি করেন এবং ধৃত আসামী জাল টাকা কারবারীর চক্রের একজন সক্রিয় সদস্য বলে গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়। এই চক্রের মূল টার্গের হলো করোনা কালিন সময়ে মানুষের হাতে কোনো টাকা না থাকা এই সুযোগ ব্যবহার করে জাল টাকা ব্যবহার করা সহ আসন্ন মাহে রমজান ও পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে জাল টাকা ব্যবহার করবে। উক্ত গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের একটি চৌকষ অভিযানিক দল অদ্য ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং তারিখ রাত ০১.৩০ ঘটিকার সময় “কুষ্টিয়া জেলার সদর থানাধীন পিয়ারপুর গ্রামস্থ পিয়ারপুর ক্লাব এর সামনে পাঁকা রাস্তার উপর” একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে জাল টাকা-১৭৫০০/- (সতেরো হাজার পাঁচশত), মোবাইল ফোন-০১টি এবং সীমকার্ড-০১টি সহ ০১ জন জাল টাকা কারবারীর সক্রিয় সদস্য মোঃ শফিউর রহমান @ বাধন (২৫), পিতা-মোঃ মেজবাউর রহমান @ মেজবাউল (লিগার), মাতা-মোছাঃ সালমা আক্তার, সাং-পিয়ারপুর, থানা-সদর, জেলা-কুষ্টিয়া’কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত আলামত সহ ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া জেলার সদর থানায় একটি বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামী’কে কুষ্টিয়া জেলার সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, এই ধরণের জাল টাকা কারবারীর চক্রের সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযান সচল রেখে জাল টাকা মুক্ত সোনার বাংলা গঠনে র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া বদ্ধপরিকর। র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া’কে তথ্য দিন মাদক, অস্ত্রধারী ও জঙ্গীমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে অংশ নিন।

 

 

error: Content is protected !!