নিজস্ব প্রতিনিধি : সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে সরকারী কর্মকর্তা পরিচয় ধারণ পূর্বক প্রতারনা, ভূয়া র‌্যাব পরিচয়, ভূয়া পুলিশ পরিচয়, অপহরণ, ছিনতাই, মলম পার্টি ও প্রতারক চক্রের ব্যাপক হিড়িক লেগেছে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের র‌্যাবের একটি চৌকষ অভিযানিক দল উক্ত বিষয়ের উপর নিরিব নজরদারী সহ অধিকতর গোয়েন্দ তৎপর বৃদ্ধি করেন এবং ধৃত আসামী সরকারী কর্মকর্তা পরিচয় ধারণ পূর্বক প্রতারনা করে ভূয়া ডিবি পরিচয়দান কারী চক্রের একজন সক্রিয় সদস্য বলে গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে নিশ্চিত হয়। এই চক্রের মূল টার্গের হলো রাত্রিকালীন সময়ে দূরপারলার মালবাহী ট্রাক, প্রাইভেট কার সহ অন্যান্য গাড়ী ও ভূক্তভূগীর নিকটে হতে টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিত এবং অনেক’কে আটকে রেখে অস্ত্রের মুখে বিকাশ ও নগদ এর মাধ্যমে টাকা দিতে বাধ্য করতো। উক্ত গোপন তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের একটি চৌকষ অভিযানিক দল অদ্য ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ইং তারিখ ভোর ০৬.৩০ ঘটিকার সময় “কুষ্টিয়া জেলার মডেল থানাধীন পূর্ব মজমপুর খ্রিষ্টান ধর্মীয় কবর স্থান এর পশ্চিম উত্তরে কথিত বারী চৌধুরীর মাঠ হতে” একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে খেলনা পিস্তল-০১টি, টর্চ লাইট-০১টি, বাঁশি-১টি, ভূয়া আইডি কার্ড-০২টি, মোবাইল ফোন-০৪টি, সীমকার্ড-০৩টি ও নগদ-২৪০/- টাকা সহ ০১ জন ভূয়া ডিবি পুলিশ পরিচয়দানকারী ধৃত আসামী মোঃ রনি আহম্মেদ (২৮), পিতা-মোঃ আনোয়ার হোসেন, সাং-বলিদাপাড়া (মাঠপাড়া), থানা-মিরপুর, জেলা-কুষ্টিয়া’কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত আলামত সহ ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া জেলার সদর থানায় একটি প্রতারনার মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামী’কে কুষ্টিয়া জেলার সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, এই ধরণের প্রতারক চক্রের সক্রিয় সদস্যদের বিরুদ্ধে অভিযান সচল রেখে প্রতারনা মূলক সমাজ মুক্ত সোনার বাংলা গঠনে র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া বদ্ধপরিকর। র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া’কে তথ্য দিন মাদক, অস্ত্রধারী ও জঙ্গীমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে অংশ নিন।

error: Content is protected !!