কুমারখালী প্রতিনিধি : খাবার নেই, এক ঘণ্টায় দুস্থের বাড়িতে ইউএনও বিতান কুমার। ‘ বাড়িতে খাবার নেই। মেম্বর, চেয়ারম্যানের কাছে গিছি, নেতার কাছে গিছি। কেউ কথা শুনিনি।’ এক বয়োজ্যেষ্ঠ বিধবা ও দুস্থ মহিলার এমন খবর পৌছে যায় কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা কর্মকর্তা (ইউএনও) বিতান কুমার মন্ডলের কাছে।

খবর পাওয়ার ঘণ্টা খানেকের মধ্যে প্রায় ১০ কিলোমিটার জরাজীর্ণ ও ভাঙা সড়ক মাড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ওই মহিলার বাড়িতে হাজির হন ইউএনও।

এ ঘটনাটি শনিবার (১৭ জুলাই) উপজেলার যদুবয়রা ইউনিয়নের জোতমোড়া গ্রামের। ওই মহিলা গ্রামের মৃত আফিল উদ্দিনের স্ত্রী। এসময় দুস্থ মহিলার সার্বিক খোঁজ খবর নেন ইউএনও। পরবর্তীতে অন্যান্য সহযোগীতার আশ্বাস দেন তিনি।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী পেয়ে ওই মহিলা বলেন, আমি খুব অসহায়। আল্লাহ তেমার ভাল করুক বেটা। তুমি ভাল থেকো।

এবিষয়ে সংবাদদাতা ওই জনৈক্য ব্যক্তি বলেন, ব্যাপারটা অনেকের কাছে ছোট হতে পারে। তবে আমার কাছে অনেক কিছু। ঘড়ির কাঁটায় সকাল সাড়ে ৭ টা। এক পরিচিত মুখ, তবে দুস্থ। থরথর করে তাঁর সারা শরীর কাঁপছে। শুধু বলছে কেউ দিলনা। খাতি পারছিনা। খাবার নেই। একথা শুনে মাত্র ২৫ সেকেন্ডের ভিডিও পাঠিয়েছি ইউএনও স্যারের ম্যাসেন্জারে। শুধু বললেন ব্যাবস্থা নিচ্ছি। কিন্তু এভাবে এক ঘণ্টায় আসবেন ভাবিনি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিতান কুমার মন্ডল বলেন, করোনায় অনেকে অসহায় ও কর্মহীন হয়ে পড়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাদের জন্য উপহার সামগ্রী পাঠিয়েছে। আমি কর্মকর্তা হিসেবে নিয়ে এসেছি। তিনি আরো বলেন, এমন সময় হয়তো আর বেশিদিন থাকবেনা। সবাইকে ধর্য্যশীল ও সচেতন হয়ে মোকাবেলা করতে হবে।

error: Content is protected !!