দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে গাছের পাকা কাঠাল পেড়ে খাওয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় ইসলাম আলী (৬২) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে দৌলতপুর উপজেলার হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের বেগুনবাড়িয়া গ্রামে হত্যাকান্ডের এ ঘটনা ঘটে। হত্যার এ ঘটনায় গাজু মন্ডল নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বেগুনবাড়িয়া গ্রামের ইসলাম আলীর নাতি ছেলে বাহাদুর (১০) প্রতিপক্ষ সতি মন্ডলের গাছ থেকে একটি পাকা কাঠাল পেড়ে খায়। এনিয়ে ইসলাম আলীকে কাঠালগাছ মালিক সতি মন্ডল গাল মন্দ করলে ইসলাম ও সতির মধ্যে তর্ক বিতর্ক ও কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে সতি মন্ডলের ছেলে গাজু মন্ডল ক্ষুব্ধ হয়ে ইসলাম আলীর ওপর হামলা চালিয়ে তাকে লাঠি দিয়ে মাথায় আঘাত করলে ইসলাম মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। এসময় সতি ও গাজুসহ বাড়ির লোকজন সংগবদ্ধ হয়ে ইসলাম আলীকে বেধড়ক লঠিপিটা করে হাত-পা ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয়। স্থানীয়রা আশংকাজনক অবস্থায় ইসলাম আলীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে সে মারা যায়। এ ঘটনার পর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে এবং নিহত ইসলাম আলীর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে।

হত্যার এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার সকালে নিহতের শ্যালক শুকচাদ ওরফে শুকুর আলী বাদী হয়ে ১১জনকে আসামী করে দৌলতপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছে, যার নং ২২। মামলার পর পুলিশ গাজু মন্ডল (৪০) কে গ্রেফতার করেছে।

হত্যার ঘটনায় হোগলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান সেলিম চৌধুরী জানান, বেগুনবাড়িয়া গ্রামে কাঠালপাড়া নিয়ে প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে ইসলাম নামে একজন মারা গেছে। নিহত ইসলাম ও যারা মেরেছে তারা পরস্পর অত্মীয়।

এবিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি (তদন্ত) শফিকুল ইসলাম জানান, বেগুনবাড়িয়া গ্রামে গাছের পাকা কাঠাল পেড়ে খাওয়াকে কেন্দ্র করে ইসলাম আলী নামে এক ব্যক্তিকে গাছ মালিকরা পিটিয়ে হত্যা করেছে। নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলা হলে মামলার অন্যতম আসামী গাজু মন্ডলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

error: Content is protected !!