রবিবার্তা ডেস্ক : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে “বিশ্বাস ক্লিনিক এন্ড সনো ডায়াগনস্টিক সেন্টার” এ রমনী খাতুন (২৫) নামের এক প্রসুতি মায়ের চিকিৎসায় অবহেলার মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। গর্ভের সন্তানসহ রমনীর মৃত্যুতে এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়, পরে প্রশাসন গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

রোববার (০৮ নভেম্বর) দুপুরে ঐ বে-সরকারী ক্লিনিকটিকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সিলগালা করে দিয়েছে দৌলতপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আজগর আলী।

নিহত রমনী খাতুন উপজেলার বেগুনবাড়িয়া এলাকার শ্রমিক বাচ্চুর স্ত্রী। প্রথম সন্তান জন্মদিতে গিয়ে মারা গেলো সে।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) জহুরুল আলম জানান, শনিবার (০৭ নভেম্বর) দিবাগত রাত ৩টার দিকে প্রসব বেদনায় থাকা রমনীকে “বিশ্বাস ক্লিনিক এন্ড সনো ডায়াগনস্টিক সেন্টার” ভর্তি করা হলে, রোববার (০৮ নভেম্বর) সকাল ৮টা পর্যন্ত কোন চিকিৎসা দেয়া হয়নি, পরে চিকিৎসক এসে চিকিৎসা দেয়া শুরু করতেই প্রসূতি ওই মায়ের মৃত্যু হয় বলে অভিযোগ করেন ঐ নারীর পরিবার। পরে বেলা ১০টার দিকে তারা ক্লিনিকের সামনে বিক্ষোভ করে। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে স্থানীয়দের শান্ত করে। সেই সাথে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

পরে দুপুরে দৌলতপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) আজগর আলী উক্ত ক্লিনিকটি ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে সিলগালা করে দিয়েছেন। ঘটনার পর থেকেই ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ পলাতক বলেও জানায় ওসি।

error: Content is protected !!