নিজস্ব প্রতিবেদক : কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের অস্থায়ী (এডহক)কমিটিতে ‘অযোগ্য’ ব্যক্তিকে সভাপতি মনোনীত করায় বিক্ষুব্ধে ফুঁসে উটেছে এলকাবাসী। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় উপজেলার পান্টি ইউনিয়নের বিদ্যালয় চত্বরে প্রাক্তন-বর্তমান শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাসীর ব্যানারে কয়েকশ নারী-পুরুষ সমবেত হয়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

আন্দোলনকারীদের দাবি, বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠাকাল থেকে শুরু করে তিল তিল করে গড়ে তুলেছেন এবং শিক্ষক হিসেবে মানুষ গড়ার ব্রত নিয়ে অত্র এলাকায় নারী শিক্ষার আলোক বর্তিকা হয়ে উঠেছেন যিনি সেই বীর মুক্তিযোদ্ধা, পান্টি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন মুক্তিযোদ্ধা ও যুদ্ধকালিন কমান্ডার, ওই বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা জাহিদ হোসেন জাফর। তাকে বাদ দিয়ে স্থানীয় এক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতাকে সভাপতি করায় চরম ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী। তারা অবিলম্বে বিদ্যালয়টি গড়ে তোলার কারিগড় জাহিদ হোসেন জাফর অথবা যোগ্যতম অন্য কাউকে বিদ্যালয়ের সভাপতি হিসেবে মনোনয়ন দেয়াসহ অযোগ্য এএইচএম আব্দুল্লাহ টিপুকে অপসারণ দাবি করেন। অন্যথায় দাবি আদায়ে আরও কঠোর কর্মসূচী পালনেরও ঘোষনা দেন আন্দোলনকারীরা।

আন্দোলনকারীদের প্রতিবাদ ও দাবি সংক্রান্ত বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও সাধারণ সম্পাদক দীনবন্ধু কুমার বিশ^াস বলেন, সম্পূর্নরূপে অস্থায়ী ভিত্তিতে ৪সদস্যের একটি এ্যাডহক কমিটির সদস্য নামের তালিকা আমরা বোর্ডে প্রেরণ করেছিলাম। সেখানে এএইচ এম আব্দুল্লাহ টিপু সাহেবের নাম ছিলো না। ২৩ মার্চ যশোর শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক ড. বিশ^াস শাহীন আহমেদ স্বাক্ষরিত ও প্রেরিত পত্রের মাধ্যমে এএইচ এম আব্দুল্লাহ টিপুকে সভাপতি করে ৪সদস্যের একটি কমিটি নির্ধারণ করে দিয়েছেন বোর্ডের এখতিয়ার বলে। বোর্ড এনামটি কিভাবে সংযোজন করেছেন তা আমার জানা নাই।

কুমারখালী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুর রশিদ জানান, এখন সংশ্লিষ্ট আন্ত:দাপ্তরিক সকল ধরনের ফাইলপত্র অন লাইন প্রেরন করার ফলে শিক্ষা অফিস এসব বিষয় জানতেও পারেনা। তবে পান্টি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এ্যাডহক কমিটিতে বোর্ড কর্তৃক নতুন সভাপতি মনোনয়ন দেয়ায় যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে এর সাথে প্রকৃত অর্থে শিক্ষা অফিসের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম খান বলেন, আমি স্যোসাল মিডিয়াতে দেখে জানতে পারলাম পান্টিতে স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মনোনয়ন নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে একটু অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে। আমি উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে খোঁজ নিয়ে জানাতে বলেছি।

error: Content is protected !!