রানা কাদির, চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি : চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা মডেল থানায় জমিজমা নিয়ে সালিশ বৈঠক শেষে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আওযামী লীগ দামুড়হুদা সদর ইউনিয়নের সভাপতি শহিদুল ইসলামের চড়কিল থপ্পড়ে ইস্রাফিল (৭৫) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে মডেল থানার প্রধান ফটকের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনার পর ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। বৃদ্ধ দামুড়হুদা উপজেলার পীরপুরকুল্লাা গ্রামের মরহুম জোনাব আলীর ছেলে।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল খালেক জানান, দামুড়হুদা উপজেলার পীরপুরকুল্লা গ্রামের বজলুর রশিদ ও নজরুল ইসলামের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনায় শামসুল ইসলামের ছেলে নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একই গ্রামের বজলুর রশিদের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে দামুড়হুদা থানার পক্ষ থেকে উভয়কে নিয়ে শুক্রবার বেলা ২টার দিকে থানা চত্বরে সালিশ বৈঠকে বসে। সালিশ না হওয়ায় ইস্্রাফিল ও তার লোকজন থানা থেকে বেরিয়ে গেলে প্রধান ফটকের কাছে দামুড়হুদা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও দামুড়হুদা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বাদী নজরুল ইসলামের পক্ষ নিয়ে আক্রমনাত্বকভাবে ইস্রাফিলকে গালিগালাজ করতে থাকে। পরে তাকে চড়-থাপ্পড় কিল-ঘুষি ও গলা টিপে ধরে ধাক্কা মারলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে এদিন বেলা ৩টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনার পর শহিদুল ইসলামকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। পরবর্তীতে অভিযোগের ভিত্তিতে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

error: Content is protected !!