রবিবার্তা ডেস্ক
আমন মৌসুম শেষ। ধান কাটার পর গ্রামের মাঠ এখন ফাঁকা। সেখানে একসঙ্গে দৌড়ে আসছে ৮/১০টি গরুর গাড়ি। গরুর খুরের আঘাতে ধুলোয় ছেঁয়ে গেছে এলাকা। গাড়ি টেনে সামনে নেয়া গরুগুলোর সাজসজ্জায় বলে দিচ্ছিল এটি প্রতিযোগিতা। মাঠের দু’পাশে দাঁড়িয়ে সেই গরুর গাড়ি দৌড় প্রতিযোগিতা উপভোগ করেছে হাজারও মানুষ।

ভারতীয় সীমান্ত ঘেষা চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের বাকা গ্রামে শুক্রবার (২৫ ডিসেম্বর) দিনভর চোখে পড়ে এমন দৃশ্য। আকাশ সংস্কৃতির দৌরাত্ম্য এবং কালের বিবর্তনে প্রায় হারিয়ে যাওয়া গরুর গাড়ি দৌড় প্রতিযোগিতার আয়োজন করে স্থানীয় বাসিন্দারা।

হারাতে বসা ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে এবং নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরার লক্ষ্যে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন। যা দেখে আনন্দ উপভোগ করেন গ্রামবাংলার নারী-পুরুষ থেকে শুরু করে শিশু ও বৃদ্ধ-বৃদ্ধারা। বিলুপ্তপ্রায় এ প্রতিযোগিতা উপভোগ করতে শুধু চুয়াডাঙ্গা নয়, আশেপাশের জেলা থেকেও এসেছিলেন অনেক মানুষ।

বাকা গ্রামে এই প্রথম এমন আয়োজন। এ প্রতিযোগিতায় পার্শ্ববর্তী যশোর ও ঝিনাইদহ থেকে গাড়িয়ালরা অংশ নিতে আসেন। সবমিলিয়ে ৫০টি গরুর গাড়ি নিয়ে কয়েক পর্বে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়।

খেলা শুরুর আগেই নির্ধারিত মাঠের দু’পাশে জড়ো হন দর্শকরা। প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন জীবননগর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তুজা। খেলা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকারী গাড়িয়াল পান ২৪ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন। আর দ্বিতীয় স্থান অধিকারীকে দেয়া হয় একটি বাইকেল।

প্রতিযোগিতার উদ্বোধন ও সমাপনী পর্বে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের প্রধান, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন ফরজ, হাশেম মাস্টার, প্রতিযোগিতা পরিচালনা কমিটির সভাপতি খায়রুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শাহাবউদ্দিন, ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নান, মহিদুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান প্রমুখ।

error: Content is protected !!