সাইহাম সালাম, চট্টগ্রাম জেলা প্রতিনিধি : বুধবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের চিফ অপারেটিং সুপারিনটেনডেন্ট (পূর্ব) এ.এম সালাউদ্দীন। তিনি বলেন,করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বিশ্ববিদ্যালয় খুললে চট্টগ্রাম শহর থেকে -চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় রুটে একটি নতুন ডেমু ট্রেন চলাচল করবে। চট্টগ্রাম থেকে প্রতিদিন বিকেল ৪টা ৪৫ মিনিটে ছুটে যাবে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। সেখানে পৌঁছাবে বিকেল ৫টা ৪৫ মিনিটে। অন্যদিকে চবি ক্যাম্পাস থেকে চট্টগ্রামের দিকে রওনা দেবে সন্ধ্যা ৬ টায়। যা চট্টগ্রামে পৌছানোর কথা রয়েছে সন্ধ্যা ৭ টায়। শুক্রবার ট্রেনটি চলাচল করবে না।

তিনি আরও বলেন, এই ডেমু ট্রেনের পাশাপাশি অন্যান্য সকল ট্রেন সহ আগের দুটি ডেমু ট্রেনও যথাসময়ে চলবে।

জানা যায়, ২০১৯ সালের ২৩ জুলাই সন্ধ্যায় হঠাৎ করেই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীণ আখতারকে রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন পরদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের শাটল ট্রেনে চড়ে ক্যাম্পাসে আসবেন বলে জানান। ঘোষণা অনুযায়ী পরদিন ২৪ জুলাই শাটল ট্রেনে চড়ে ক্যাম্পাসে আসেন রেলমন্ত্রী।

এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সম্মেলন কক্ষে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন, রেলওয়ের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে মতবিনিময় করেন রেলমন্ত্রী। এতে তিনি ঘোষণা দেন এসি, ওয়াই-ফাইসহ ১৫-১৬ বগি বিশিষ্ট একটি নতুন ট্রেন দিবেন চবি শিক্ষার্থীদের। এসময় মন্ত্রী চবি রুটের রেললাইনের দুরবস্থার সমালোচনা করেন এবং দ্রুততম সময়ের মধ্যে সংস্কারের নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে গতবছর রেললাইন সংস্কার, প্লাটর্ফম নির্মাণ, স্লিপার পরিবর্তনসহ সংস্কার করা হয়।

রেলওয়ে সূত্রে আরও জানা যায়, রেললাইনের সংস্কার কাজ শেষ হলে এ রুটে ট্রেন চলবে ৬০ কিলোমিটার বেগে। যা আগে চলতো ১৫-২০ কিলোমিটার বেগে।

error: Content is protected !!