মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ॥ মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক তথ্যবহুল একটি গ্রন্থ প্রকাশের পথে। মৃগী শহীদ দিয়ানত কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর রচিত “মুক্তিযুদ্ধে রাজবাড়ী জেলার পাংশা ও কালুখালী উপজেলা” গ্রন্থের কাজ প্রায় শেষের দিকে।

গ্রন্থের লেখক- পাংশা উপজেলার মাছপাড়া ইউপির রামকোল-বাহাদুরপুর গ্রামের বাসিন্দা বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিশাল। ২০১৪ সালে “মৃক্তিযুদ্ধের ইতিহাস লিপিবদ্ধকরণ” কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক দায়িত্বপ্রাপ্ত হই। বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম মাষ্টার (বর্তমানে প্রয়াত) ও আমি (নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর) দায়িত্বপ্রাপ্ত হয়ে তখন শুরু করলেও ওই বছরই রফিকুল ইসলাম মাষ্টার মারা যাওয়ায় গ্রন্থের কার্যক্রম ব্যাহত হয়। মুক্তিযুদ্ধের দীর্ঘসময় পর তথ্য- উপাত্ত ও সংশ্লিষ্ট ছবি সংগ্রহ করা বড় ধরণের চ্যালেঞ্জ। তারপরও শুভাকাঙ্খীদের উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা গ্রন্থটি প্রকাশের সাহস জুগিয়েছে।

নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গসহ অনেক প্রত্যক্ষদর্শী আজ আমাদের মাঝে নেই। তারা বেঁচে থাকলে আমার সংগ্রহ হতে পারতো আরো ঘটনাবহুল, তথ্যপূর্ণ ও চমকপ্রদ। যে সমস্ত তথ্যের ভিত্তিতে গ্রন্থটি প্রকাশ করা হচ্ছে-তা নতুন প্রজন্ম ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি মাইল ফলক। মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও মুক্তিযোদ্ধাদের পরবর্তী বংশধরদের কাছে এ ইতিহাস একটি সমৃদ্ধ ও পবিত্র দলিল। সাথেসাথে সমগ্র জাতি জানতে পারবে পাংশা ও কালুখালী উপজেলার মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস। গ্রন্থটি লেখার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতা ও নিরপেক্ষতা বজায় রাখার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

গত শুক্রবার ১৬ জুলাই এ প্রতিনিধির সাথে আলাপকালে নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর বলেন, জীবনযাত্রা স্বাভাবিক থাকলে সাংবাদিকদের মাধ্যমেই “মুক্তিযুদ্ধে রাজবাড়ী জেলার পাংশা ও কালুখালী উপজেলা” শীর্ষক বইটি প্রকাশের আনুষ্ঠানিকতা করা হবে ইনশাল্লাহ।

error: Content is protected !!