ঢাকা অফিস : প্রধানমন্ত্রীর দেয়া উপহার পেয়েছেন নোয়াখালীর ভাসানচরের রোহিঙ্গারা। এরমধ্যে দুই হাজার ৮০০ জনকে দেয়া হয়েছে ১৩ ধরনের সরঞ্জাম।

উপহার সামগ্রীর মধ্যে রয়েছে- ৮০০ মাছ ধরার জাল, ১০০ সেলাই মেশিন, ৫০টি রিকশা-ভ্যান, পাঁচ হাজার হাঁস, পাঁচ হাজার দেশি মুরগি, ৪৫ সেট চুল কাটার সরঞ্জাম, ২৮ সেট জুতা সেলাইয়ের সরঞ্জাম, রিকশা-ভ্যান মেরামতের ২৫ সেট সরঞ্জাম, সাত সেট ইলেকট্রিক কাজের যন্ত্র, ৫০ সেট কাঠমিস্ত্রির যন্ত্র, ১০০ জনকে দেয়া হয়েছে মুদি দোকানের জিনিসপত্র, ১০০টি দেশি ছাগল ও ২০০ জনকে দেয়া হয় মাছের পোনা।

শনিবার (১৭ জুলাই) বিষয়টি নিশ্চিত করেন আশ্রয়ণ-৩ প্রকল্পের পরিচালক কমোডর এম রাশেদ সাত্তার।

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের জীবিকা নির্বাহ করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের জন্য কাজের বিভিন্ন সরঞ্জাম পাঠিয়েছেন। যে যে ধরনের কর্ম করতে পারবেন তাকে সেভাবে সরঞ্জাম দেয়া হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রথমবারের মতো জীবিকার এসব সামগ্রী পেয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন রোহিঙ্গারা। কারণ নিরাপদ আশ্রয় পেলেও জীবিকা নির্বাহ নিয়ে তাদের মধ্যে ছিল হতাশা। সরকারিভাবে সকল সুযোগ-সুবিধা থাকলে রোহিঙ্গাদের কাছে নগদ টাকার আয় না থাকায় তাদের মধ্যে অসন্তোষ ছিল।’

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শিবিরের ওপর চাপ কমাতে সাত মাস আগে রোহিঙ্গাদের প্রথম দলটিকে নোয়াখালীর হাতিয়ায় ভাসানচরে সরিয়ে নেয়া হয়েছিল। সব মিলিয়ে আট ধাপে যাওয়া ১৮ হাজার ৩৪৭ জন রোহিঙ্গা এখানে বাস করছেন।

error: Content is protected !!