র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে থাকে। জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, ছিনতাইকারী, জুয়ারি, মাদক ব্যবসায়ী, খুন, এবং অপহরণসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর মামলার আসামী গ্রেফতারে র‌্যাব নিয়মিত অভিযান চালিয়ে আসছে।

এরই ধারাবাহিকতায় ০১/০৬/২০২১ খ্রীঃ তারিখে বিকাল ৪.৫০ ঘটিকায় র‌্যাব-১২ এর স্পেশাল কোম্পানীর ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার মি. জন রানা এর নেতৃত্বে স্পেশাল কোম্পানীর একটি চৌকষ আভিযানিক দল সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া থানাধীন হবনাতী দরবেশপাড়া গ্রামে অভিযান পরিচালনা করে (১০০০ী২) ২,০০০/- (দুই হাজার) জাল টাকা সহ ০৪ জন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাহাদের নিকট থেকে ব্যবহৃত ০৫ টি মোবাইল ফোন এবং নগদ-২৭,৫০০/-(সাতাশ হাজার পাঁচশত) টাকা জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী ১। মোঃ মোহাব্বত হোসেন শামীশ (৩৮), পিতা-আছের উদ্দিন শেখ, সাং-রশিদপুর, থানা-সলঙ্গা ২। জিয়াউর রহমান (৩৮), পিতা-মৃত আব্দুস সামাদ, সাং-খাসচর জামালপুর, ৩। মোঃ সুলতান প্রমামনিক (৪০), পিতা-মৃত- বরাত আলী প্রমানিক সাং-অলিপুর (দরবেশপাড়া), ৪। মোঃ আলী আকবর (৪০), পিতা মৃত- সুজাত প্রমানিক, সাং- অলিপুর (দরবেশ পাড়া), সর্ব থানা উল্লাপাড়া, জেলা-সিরাজগঞ্জ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, এই ধৃত আসামীগণ পরস্পর যোগ সাজষে দীর্ঘদিন যাবŤ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিয়ে সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া থানার বিভিন্ন এলাকায় জাল টাকার নোট নিজ হেফাজতে রাখিয়া লেনদেন করিয়া আসছিল।

গ্রেফতারকৃত আসামীগণ ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫(ক)/২৫(ঘ) ধারায় মামলা দায়ের করতঃ উদ্ধারকৃত আলামতসহ তাহাদেরকে উল্লাপাড়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ধরণের জাল টাকা বিরোধী অভিযান সচল রেখে সোনার বাংলা গঠনে র‌্যাব-১২ বদ্ধপরিকর।

র‌্যাব-১২ কে তথ্য দিন – মাদক , অস্ত্রধারী ও জঙ্গিমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে অংশ নিন।

error: Content is protected !!