মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ী জেলার পাংশায় চন্দনা নদীতে অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার চলছেই। প্রবাহমান নদীতে অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ শিকারে এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন মৎস্যজীবীরা।

শনিবার ১৮সেপ্টেম্বর দুপুরে সরজমিন চরআফড়া স্লুইজগেটের অদূরে চরআফড়া-রায়নগর সীমান্তে জনৈক আব্দুল খানের বাড়ির পাশে চন্দনা নদীতে এছাড়া মৌকুড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অদূরে দুলাল পালের ঘাট নামক স্থানে চন্দনা নদীতে বাঁধ দিয়ে সুতি জাল ফেলে অবাধে মাছ শিকারের দৃশ্য দেখা যায়।

স্থানীয়রা জানায়, স্বার্থান্বেষীমহল নদীতে অবৈধভাবে বাঁধ দিয়ে সুতি জালের মাধ্যমে মাছ শিকার করছে। সুতি জালে ছোটবড় সব ধরণের মাছ আটকে যায়। অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ শিকার করায় বাঁধের মধ্যবর্তী নদীতে সাধারণ মানুষ বা জেলেরা জাল ফেলে মাছ পাচ্ছে না। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হচ্ছে এলাকার মৎস্যজীবীদের।

চন্দনা নদীতে একাধিক স্থানে অবৈধ বাঁধ দিয়ে মাছ শিকারের বিষয়ে জানতে চাইলে পাংশা উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সাঈদ আহমেদ জানান, উন্মুক্ত খাল ও নদীতে বাঁধ দিয়ে মাছ ধরা অবৈধ। অবৈধ বাঁধ উচ্ছেদসহ নদীতে বাঁধ দিয়ে মাছ শিকারের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন আছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.