নিজস্ব প্রতিবেদক : কুষ্টিয়া কুমারখালীর আলাউদ্দিন নগর নামকস্থানে ট্রেনে কেটে মুন্না প্রামানিক (৫৫) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে আলাউদ্দিন নগরের নিকটস্থ কালুর মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। সে কুমারখালী উপজেলার কয়া মাঠপাড়া গ্রামের তৈয়ব আলীর ছেলে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বুধবার সকালে মুন্না একটি পাখি ভ্যানে পিয়াজ বোঝায় করে বিক্রির উদ্দেশ্যে হাটে আসেন। এসময় পিয়াজ নামিয়ে পাশেই ভ্যানটি রেখেছিলো। কিছুক্ষন পরে পিছন ফিরে দেখতে পান তার ভ্যানটি সেখানে নেই। আশপাশে খোঁজ করেও কোন সন্ধান না পেয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। হাটের লোকজন বুঝিয়ে সুজিয়ে মুন্নাকে বাড়িয়ে পাঠিয়ে দেন। চরম দুশ্চিন্তাগ্রস্ত মুন্না রেল লাইনের পাশ দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় বিপরীত দিক থেকে কুষ্টিয়া হইতে রাজবাড়ী অভিমুখী যাত্রীবাহী ট্রেনের ধাক্কায় ছিটকে ট্রেনের নীচেই পরে যান। এতে ঘটন্থলেই তার মৃত্যু হয়। স্থানীয়রা ঘটনাস্থল থেকে তার খন্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশে খবর দেয়। সংবাদ পেয়ে পোড়াদহ রেলওয়ে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুমারখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, উপজেলার কয়া গ্রামের মুন্না নামে এক ব্যক্তি ট্রেনে কেটে মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে আমরা পোড়াদহ রেলপুলিশকে জানায়। পরে রেলপুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছেন। প্রাথমিক ভাবে জেনেছি লোকটি হাটে পিয়াজ বেঁচতে এসেছিলো পাখি ভ্যানে করে, সেটিও আজ সকালে হারিয়েছে হাট থেকে। তবে এবিষয়ে এখনও কেউ থানায় কোন অভিযোগ নিয়ে আসেনি।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.