দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ভূমি অফিসের চিত্রের পরিবর্তন হয়েছে। ভূমি সেবা সহজীকরণে গ্রহণ করা হয়েছে প্রযুক্তি নির্ভর নতুন উদ্যোগ। যা শুধুমাত্র উপজেলা অফিসের সকল কক্ষে নয়, দূরবর্তী সকল ইউনিয়ন ভূমি অফিসে বসানো হয়েছে ইন্টারনেট ভিত্তিক স্পিকারসহ আধুনিক মানের সিসি টিভি ক্যামেরা। এ ক্যামেরার মাধ্যমে উপজেলা ভূমি অফিসে বসেই সকল ইউনিয়ন ভূমি অফিস মনিটরিং করা হচ্ছে এবং দেয়া হচ্ছে নির্দেশনা। এ প্রযুক্তির মাধ্যমে সেবা গ্রহীতারা প্রয়োজনে ইউনিয়ন ভূমি অফিস থেকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর সাথে কথা বলতেও পারবেন এবং নির্দেশনাও নিতে পারবেন। শুধু তাই নয় দেশের যেকোনো স্থান থেকে সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ উপজেলা ভূমি অফিস মনিটরিং করতে পারবেন এ প্রযুক্তির মাধ্যমে। এছাড়াাও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নিয়মিত মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। আর এসব কর্মকান্ড উপজেলা ভূমি অফিসে বসানো মনিটরের মাধ্যমে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড ও সহজীকরণ ভূমি সেবা দেখানোও সম্ভব হচ্ছে।

আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর এ সেবার বিষয়ে দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) আফরোজ শাহীন খসরু বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ একটি স্বপ্ন, একটি প্রত্যয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ একটি তথ্য ও প্রযুক্তি নির্ভর দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। ভূমি সেবা প্রদানে এসেছে আমূল পরিবর্তন, বেড়েছে জবাবদিহিতা। এর স্বীকৃতি স্বরুপ বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয় পেয়েছে পুরুস্কার। ভূমি সেবা গ্রহীতাদের কষ্ট লাঘবে নিজ কর্মস্থলে প্রযুক্তি নির্ভর উদ্যোগগুলো গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি আশা করেন, দেশব্যাপী এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হলে ভূমি সেবায় অধিক গতিশীলতা, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতায় আসবে। তিনি বলেন, প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় পূরণ হোক ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন। দৌলতপুর উপজেলা ভূমি অফিস হোক তার রোল মডেল।

প্রযুক্তি নির্ভর দৌলতপুর ভূমি অফিসের এ সেবা পেয়ে সেবা গ্রহীতারাও খুশি। তারা বলেন, মাত্র ১১৭০ টাকা ফি দিয়ে নামজারি বা জমি খারিজ করা যাচ্ছে। যা অতীতে এর কয়েকগুন দিয়েও দিনের পর দিন ঘুতে হয়েছে অফিসের বারান্দায়। বর্তমানে গ্রাহক ভূগান্তি কমেছে বলেও সেবা প্রাপ্তিদের দাবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.