মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ঃ রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলায় শনিবার ৬ নভেম্বর “বঙ্গবন্ধুর দর্শন, সমবায়ে উন্নয়ন” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জাতীয় পতাকা ও সমবায় পতাকা উত্তোলন, সমবায় র‌্যালী, আলোচনা ও পুরস্কার বিতরণের মধ্যদিয়ে ৫০তম জাতীয় সমবায় দিবস-২০২১ উদযাপিত হয়েছে। পাংশা উপজেলা প্রশাসন, সমবায় বিভাগ ও সমবায়ীবৃন্দ এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

জানা যায়, শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা ও সমবায় পতাকা উত্তোলনের মধ্যদিয়ে কর্মসূচি শুরু হয়।

পাংশা উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মাদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন বিশ্বাস, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া বেগম, সমবায়ী সদস্য হেলাল উদ্দিন ও রোকেয়া বেগম বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাংশা উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা এস.এম কামরুন্নাহার। উপস্থাপনা করেন উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা শ্যামল কুমার বিশ্বাস।

অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ সমিতি হিসেবে বাহাদুরপুর ইউপির অগ্রনী সঞ্চয় ও ঋণদান সমবায় সমতি লিমিটেড, কলিমহর ইউপির হাটবনগ্রাম শাপলা বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড ও হাবাসপুর ইউপির সাড়া সার্বিক গ্রাম উন্নয়ন সমবায় সমিতি লিমিটেডকে এবং শ্রেষ্ঠ সমবায়ী হিসেবে হাবাসপুর প্রাথমিক দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় সমিতি লিমিটেডকে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

অতিথিবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর দর্শন, সমবায়ে উন্নয়ন প্রতিপাদ্য বিষয়ে আলোচনা করেন।

স্বাগত বক্তব্যে সমবায় কর্মকর্তা এস.এম কামরুন্নাহার বলেন, ১৯৭২ সালে স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় সমবায় দিবসের প্রবর্তন করেন। প্রতি বছর নভেম্বর মাসের প্রথম শনিবার যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার সাথে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে দিবসটি উদযাপন করা হয়। তিনি বলেন, বর্তমানে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পিতার আদর্শে, পিতার দর্শনের সাথে তার সমবায় দর্শনকে কাজে লাগিয়ে এদেশের নিপীড়িত ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে উজ্জীবিত করার জন্য কার্যকরী পদক্ষেপ নিয়েছেন।

এস.এম কামরুন্নাহার পাংশা উপজেলার সার্বিক কার্যক্রম তুলে ধরে সমবায়ীদের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি ও সফলতা কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.