র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকেই দেশের সার্বিক আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে সব ধরণের অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। জঙ্গী, সন্ত্রাসী, সংঘবদ্ধ অপরাধী, ছিনতাইকারী, জুয়ারি, মাদক ব্যবসায়ী, খুন, এবং অপহরণসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর মামলার আসামী গ্রেফতারে র‌্যাব নিয়মিত অভিযান চালিয়ে আসছে।
এরই ধারাবাহিকতায় ০৬/১১/২০২১ খ্রিঃ দুপুর ০২.৫০ ঘটিকায় গোপন সাংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২ এর সদর কোম্পানীর এমটিও সিনিয়র সহকারী পুলিশ মোঃ গোলাম ফারুক এর নেতৃত্বে সদর কোম্পানীর একটি চৌকষ আভিযানিক দল বগুড়া জেলার সদর থানাধীন ঠনঠনিয়া বাসস্ট্যান্ডের পশ্চিম পার্শ্বে তিন ভাই হোটেলের সামনে পাঁকা রাস্তার উপর এক মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ৯৮ (আটানব্বই) বোতল ফেন্সিডিলসহ ০২ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে। এ সময় তাহাদের নিকট থেকে মাদক ক্রয়-বিক্রয়ের কাজে ব্যবহৃত ০২ টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামী ১। মোঃ মামুনুর রহমান(৪৩), পিতা-মোঃ কামরুজ্জামান শেখ, সাং-বেতগাড়ী, থানা-শাহজাহানপুর, জেলা-বগুড়া, ২। মোঃ মোস্তফা(৫৫), পিতা-মৃত রমজান আলী, সাং-চালিতাবাড়ি, থানা ও জেলা-বগুড়া,বর্তমান ঠিকানা- হিলি বাজার টিএন্ডটি এর পিছনে ইলিয়াস উদ্দিনের বাসা,থানা-হাকিমপুর,জেলা-দিনাজপুর।

গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬(১) সারণীর ১৪(গ)/৪১ ধারায় মামলা দায়ের করত উদ্ধারকৃত আলামতসহ তাহাদেরকে বগুড়া জেলার সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, এই মাদক ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন যাবত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিয়ে বগুড়া জেলার বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয় করে আসছিল।

এ ধরণের মাদক বিরোধী অভিযান সচল রেখে সোনার বাংলা গঠনে র‌্যাব-১২ বদ্ধপরিকর।

র‌্যাব-১২ কে তথ্য দিন – মাদক , অস্ত্রধারী ও জঙ্গিমুক্ত বাংলাদেশ গঠনে অংশ নিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.