নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ খেলার মাঠে প্লট আকারে বরাদ্দের প্রস্তাবনা তৈরির প্রতিবাদে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাউজিং এষ্টেটে মানববন্ধন করেছে সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ। জাতীয় দলের ক্রিকেটার এনামুল হক বিজয়সহ জাতীয় ফুটবল অনূর্ধ্ব ২৩ দলের সদস্য সবুজ ছাড়াও জেলা ও বিভাগীয় দলের হয়ে খেলা অসংখ্য তারকা খেলোয়াড়দের বেড়ে উঠা এই মাঠ থেকে। কিন্তু হঠাৎ এলাকার একমাত্র খেলার মাঠটির দুই-তৃতীয়াংশ জমি প্লট আকারে বরাদ্দ দেয়ার জন্য জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে জাতীয় গৃহায়ন কুষ্টিয়া বিভাগ। এরই প্রতিবাদে আজ বেলা ১১ টার সময় জাতীয় গৃহায়ন কুষ্টিয়া বিভাগের সামনে মানববন্ধন করে হাউজিং এষ্টেটে বসবাসকারী সকল শ্রেণী পেশার মানুষ। মাঠ রক্ষা সমাবেশ ও মানব বন্ধনে সভাপতিত্ব করেন স্থাানীয় ব্রাইট ষ্টার ক্লাবের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম বাপ্পী। এ সময় সেখানে এলাকার রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও খেলাধুলা সংগঠনের প্রতিনিধিত্বশীল ব্যক্তিবর্গ স্বর্ত:স্ফুর্তভাবে এই মানব বন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচীতে অংশ নেন। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মীর শওকত আলী বকুল, শহর আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম পিন্টু, ৬নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ সাহাবুদ্দিন লোটন, সিনিয়র সহ সভাপতি তৈমুর রহমান, সহ সভাপতি শেখ সাহাবুদ্দিন বাবলা,সাবেক কাউন্সিলার আক্তার হোসেন, সাবেক কৃতি খেলোয়ার কুষ্টিয়া জেলাা একাদশ ও ঢাকা অগ্রণী ব্যাংকের ফুটবলার মজিবার রহমান চুনি প্রমুখ। বর্তমানে হাউজিং এষ্টেট এলাকার প্রায় ২হাজার বাড়ি রয়েছে এবং ১৫ হাজার মানুষের বসবাস প্রায় আট হাজার ভোটার হওয়া সত্ত্বেও বিনোদন এবং মানসিক বিকাশের জন্য মাত্র একটি খেলার মাঠ রয়েছে হাউজিং এষ্টেটে । হাউজিং এষ্টেটের এর জন্ম লগ্ন থেকে খেলার মাঠ হিসেবে নির্ধারিত রয়েছে মাঠটি হাউজিং এষ্টেটের মূল নকশাতেও উল্লেখ করা রয়েছে এটি। উল্লেখ্য এই যে, এই মাঠ থেকে একাধিক খেলোয়াড় তৈরি হয়ে জাতীয় এবং জেলা পর্যায়ের খেলার হিসেবে বিশেষ অবদান রেখে চলেছে। স্থানীয় জনসাধারণ ও যুব সমাজের উদ্যোগে সারাবছর সকল বয়সী মানুষের ধারাবাহিকভাবে খেলাধুলা চলমান থাকে এখানে। মানববন্ধনে বক্তারা অঅিযোগ করেন জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ কুষ্টিয়া উপ-বিভাগ প্রকৌশলী তোফাজ্জেল হোসেন সহ অফিসের কিছু অসাধু কর্মকর্তা এবং স্থানীয় কিছু ভূমিদস্যুদের যোগসূত্রে কুচক্রী মহলের তৎপরতায় নির্ধারিত এই খেলার মাঠটি দখল করে প্লট বরাদ্দের জন্য পরিকল্পনা করছে তারা এবং তা বাস্তবায়নের জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এই কুচক্রী মহল। বর্তমানে হাউজিং’এ এ,বি,সি,ডি চারটি ব্লকের মোট জমির পরিমাণ ৩৫৯.২৬ এরমধ্যে এ,বি এবং সি তিনটি ব্লক নিয়ে গঠিত প্রথম পর্বের মোট জমির পরিমাণ ২৩৭.৭৯। হাউজিং খেলার মাঠটির বর্তমান জমির পরিমাণ প্রায় ৩ একর। কিন্তু খেলার মাঠের জন্য ১.২০ একর বাদে বাকি জমি জাতীয় গৃহায়ন কুষ্টিয়া বিভাগ নতুন করে প্লট আকারে বিক্রির জন্য জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাবনা পাঠিয়েছে। মানববন্ধন শেষে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলীপি জমা দিয়েছে হাউজিং এর সাধারন মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.