ঢাকা অফিস : বাসে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার দাবি নিয়ে পরিবহন মালিকদের সঙ্গে দ্বিতীয় দিনের মতো বৈঠক করেছে সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ। কিন্তু এদিনও কোনো সমাধান আসেনি।

শনিবার রাজধানীর বনানীতে বিআরটিএ কার্যালয়ে দুই ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এই বৈঠকে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়ার বিষয়টি এলে পরিবহন মালিকরা উল্টো ভর্তুকি দাবি করে বলেন, ঢাকার বাস মালিকদের বেশিরভাগই ‘গরিব’। টাস্কফোর্স গঠন করে তাদের জন্য ভর্তুকি নির্ধারণ করা হোক।

তাই এসব বিষয়ে ফয়সালা করতে সময় লাগবে জানিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের শান্ত থাকতে আহ্বান জানিয়েছে বিআরটিএ।

বৈঠক শেষে বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার সাংবাদিকদের বলেন, ২৫ নভেম্বরের বৈঠকের ধারাবাহিকতায় আজ এ বৈঠক ছিল। পরিবহন মালিক-শ্রমিকরা অনেক প্রস্তাব দিয়েছেন। ঢাকা শহরে কত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, কত শিক্ষার্থী এসব তথ্য চেয়েছেন তারা।

‘হাফ ভাড়া নেওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের আলাদা কোনো পরিচয়পত্র দেওয়া হবে কি-না, সে বিষয়টিও আলোচনায় এসেছে। পুরো বিষয়টি সুরাহা করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বিআরটিএ এবং পরিবহন সংশ্লিষ্টদের নিয়ে একটি টাস্কফোর্স গঠনেরও প্রস্তাব এসেছে।’

অন্যদিকে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির নেতা খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, ঢাকায় নগর পরিবহনের যে বাসগুলো চলে, তার মালিকদের ৮০ শতাংশই গরিব। একটা বা দুটো বাস চালিয়ে তাদের সংসার চলে। তাদের বাচ্চারাও স্কুল-কলেজে যায়।

‘এ কারণে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের প্রস্তাব হচ্ছে, বাস মালিকদের ক্ষতিপূরণ বা ভর্তুকির বিষয়টি নির্ধারণ করেই হাফ ভাড়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। কোন তহবিল থেকে এ ভর্তুকি আসবে সেটিও নির্ধারণ করতে হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.