দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ঠিক ১২ ঘণ্টা আগে শনিবার (২৭ নভেম্বর) রাতে হার্টঅ্যাটাক করে মারা যান ফিরোজা খাতুন (৫০) নামে এক সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী। তিনি মারা গিয়েও পেয়েছেন ৪৮৮ ভোট। রয়েছেন চতুর্থ স্থানে।

দৌলতপুর সদর ইউনিয়নের ১, ৩ ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী ফিরোজা খাতুন শনিবার দিনভর ভোটের কাজে ব্যস্ত থাকার পর রাতে অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে ভোটগ্রহণের ১২ ঘণ্টা আগে রাত ৮টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ফিরোজা খাতুন বক প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে লড়ছিলেন। তিনি দৌলতপুর সদর ইউনিয়নের চক দৌলতপুর গ্রামের তুফান আলীর স্ত্রী।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার প্রার্থী ফিরোজা খাতুন হৃদরোগে আক্রান্ত ছিলেন। তিনি নির্বাচনের আগেরদিন তার বক প্রতীকে দিনভর ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে ভোট প্রার্থনা করেন। একপর্যায়ে তিনি ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফিরে যান। মানসিক চাপে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে দৌলতপুর হাসপাতালে নেয়া হয়।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গোলাম আজম জানান, দৌলতপুর সদর ইউনিয়নের ১, ৩ ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডে ৩ হাজার ২১৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন মাইক প্রতীকের মেমজান খাতুন। মেমজান ওই তিনটি ওয়ার্ডের বর্তমান মেম্বার। তিনি পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। আর মারা যাওয়া ফিরোজা খাতুন ৪৮৮ ভোট পেয়ে চতুর্থ হন। ভোটারদের অনেকে তার আকস্মিক মৃত্যুর বিষয়টি না জেনে কিংবা জেনেও তাকে এই ভোট দিয়ে অাবেগের প্রকাশ ঘটিয়েছেন বলে তিনি মন্তব্য করেন।

ছবির ক্যাপশন : ভোটগ্রহণের আগের রাতে মৃত্যুবরণকারী ফিরোজা খাতুনের নির্বাচনী পোস্টার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.