কুমারখালী প্রতিনিধি : কুয়েটের অধ্যাপক ড. সেলিম হোসেনের মৃত্যু অস্বাভাবিক দাবি করে কুষ্টিয়ায় তার নিজ এলাকা কুমারখালী উপজেলার বাঁশগ্রামে মানববন্ধন করেছেন স্থানীয়রা। তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং বিচার দাবি করেন।
শনিবার দুপুর ১২ টায় কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার বাঁশগ্রামে ইউনাইটেড হাই স্কুলের সামনে এ মানববন্ধনে এলাকার ছাত্র, শিক্ষক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা যোগ দেন। ইউনাইটেড হাই স্কুলের ২০০০ ব্যাচের সেলিমের সহপাঠীরা এই মানববন্ধনের আয়োজন করেন। সেলিমের সহপাঠী শিক্ষক রূপ কুমার রায় বলেন, তার এ মৃত্যু আমরা স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে পারছিনা। আমাদের ধারণা তাকে মেরে ফেলা হয়েছে। তিনি এ ব্যাপারে সুষ্ঠু তদন্তের জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন। মানববন্ধনে যোগ দিয়ে অধ্যাপক সেলিমের পিতা শুকুর আলী তার ছেলের অবর্তমানে গভীর আর্থিক সংকটে পড়বেন বলে আশঙ্কা করেন। এ ব্যাপারেও তিনি সহায়তার দাবি জানান। প্রসঙ্গত গত ৩০ নভেম্বর (মঙ্গলবার) দুপুর ৩টার দিকে হার্ট অ্যাটাকে মারা যান কুয়েট শিক্ষক প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেন। তিনি কুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রফেসর ও লালন শাহ হলের প্রভোস্ট ছিলেন। তাঁর বাড়ি কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার বাঁশগ্রামে। এদিকে ছাত্রলীগ নেতাদের লাঞ্ছনা ও মানসিক নির্যাতনে খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট) শিক্ষক প্রফেসর ড. মো. সেলিম হোসেনের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.