নিজস্ব প্রতিবেদক : কুষ্টিয়ায় জেলা প্রশাসনের বর্ণাঢ্য আয়োজনে বাংলা নববর্ষ ১৪২৯ উদ্‌যাপন উপলক্ষ্যে মঙ্গল শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সহ দিনব্যাপী নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বাংলা বর্ষবরণ পহেলা বৈশাখ পালিত হয়েছে।

জেলা প্রশাসনের আয়োজনে কালেক্টর চত্বর থেকে সকালে এই বিশাল মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয়।বিশাল এই মঙ্গল শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।
কালেক্টরেট চত্বর থেকে বের হওয়া মঙ্গল শোভাযাত্রাটি বাদকদলসহ শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মজমপুর গেট হয়ে কালেক্টরেট চত্বরের বনবীথিতে শেষ হয়।

শোভাযাত্রায় জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক সংগঠন, সরকারি দপ্তর,বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারী এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ এই মঙ্গল শোভাযাত্রায় অংশ নেয়।
মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে কালেক্টরেট চত্বরে বনবীথির গাছের ছায়ায় বাঙালির প্রাণের মেলা পহেলা বৈশাখের গান, কবিতা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সুযোগ্য জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম। তিনি বলেন, পহেলা বৈশাখ সারা বিশ্বের বাঙালির প্রাণের উৎসবের দিন। ধর্ম বর্ণ জাতিভেদে বাঙালির ঐক্যের দিন। তিনি আরও বলেন, আর্থ সামাজিক উন্নয়নের শপথ নিতে হবে আজকের দিনে। বাঙালি জাতিসত্বা তুলে ধরতে হবে। নতুন প্রজন্মকে বাঙালি চেতনায় গড়ে তুলতে হবে।

এ সময় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সুযোগ্য পুলিশ সুপার খাইরুল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সিরাজুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শারমিন আখতার, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট নাসরিন বানু, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাধন কুমার বিশ্বাস, সরকারী প্রকৌশলী (জিপি) এ্যাড. আ স ম আখতারুজ্জামান মাসুম, ডেপুটি কমান্ডার হাজী রফিকুল আলম টুকু,

মঙ্গল শোভাযাত্রায় কুষ্টিয়া কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজ প্রথম স্থান, জিলা স্কুল দ্বিতীয় ও পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজ ৩য় স্থান অর্জন করে। এছাড়াও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.