মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ মেহেরপুর সরকারী কলেজের পুকুর থেকে মুসলিমা খাতুন (৩৮) নামের তামাক কোম্পানীর এক নারী শ্রমিকের গলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মুসলিমা খাতুন মেহেরপুর শহরের পোষ্ট অফিস পাড়া এলাকার জিয়ারুল ইসলামের স্ত্রী ও একই এলাকার আব্দুল মালেকের মেয়ে। সে দুই সন্তানের জননী।

আজ মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) সকাল ৯ টার দিকে মেহেরপুর সরকারী কলেজের পুকুরে অর্ধগলিত মরদেহ ভাসতে দেখে তার বাড়ির লোকজনকে খবর দিলে পরিবারের লোকজন এসে তার মরদেহ সনাক্ত করেন। তার স্যান্ডেল ও পোশাক পুকুরের পাশে পড়ে আছে।

মুসলিমা খাতুনের মা আরবি বেগম জানান, গত দুই দিন আগে তামাকের ক্রয়কেন্দ্রে তামাক বাছাইয়ের কাজ করতে বের হন। তারপর আর ফিরে আসেনি। মুসলিমার ছোট বড় বোন রেহেনা খাতুন ও ছোট বোন তাসলিমা খাতুন জানান, বৃটিশ আমেরিকা তামাক কোম্পানীর তামাক ক্রয় কেন্দ্রের গোডাউনে শ্রমিকের তামাক বাছাইয়ের কাজ করার পর সে প্রতিদিনই এই পুকুরে গোসুল করে বাড়িতে ফেরেন। ওই দিনের পর থেকে আর বাড়িতে ফিরে আসেনি সে। পরিবারের লোকজন এই পুকুরের পাড়সহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজি করেও কোনো সন্ধান মেলাতে পারেনি।

মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খান জানান, খবর পেয়ে পুলিশের একটি টীম ঘটনাস্থলে এসে নিহততের মরদেহ উদ্ধার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। কি কারনে সে মারা গিয়েছে তদন্ত সাপেক্ষ বলা যাবে।তবে পরিবারের লোকজন জানিয়েছে মুসলিমা মৃগিরোগে আক্রান্ত ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.