দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার মরিচা ইউপির হাটখোলাপাড়া এলাকায় পদ্মা নদীতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে যাওয়ার একদিন পর মনিকা খাতুন নামের এক স্কুল ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে ডুবুরী দল।

সোমবার (৯ মে) বেলা আড়াইটার দিকে পাশ্ববর্তী ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর এলাকায় পদ্মা নদী থেকে ঐ স্কুলছাত্রী মনিকা খাতুন (১৬) এর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত মনিকা খাতুন (১৬) উপজেলার মরিচা ইউপির হাটখোলাপাড়া গ্রামের মাহাবুল প্রামানিকের মেয়ে এবং জুনিয়াদহ মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে চলতি বছর এস,এস,সি পরীক্ষার্থী ছিল।

এলাকাবাসী জানায়, রোববার দুপুরে মনিকা ও আরো দুই বান্ধবী তাদের বাড়ি সংলগ্ন হাটখোলাপাড়া এলাকায় পদ্মা নদীতে গোসল নামে। এক পর্যায়ে মনিকা ডুবে যায়। এসয় তার বান্ধবীরা চিৎকার করলে প্রতিবেশীরা ছুটে আসে। কিন্তু মনিকাকে খঁজে পাওয়া যায়নি। অবশেষে পাশ্ববর্তী ভেড়ামারা উপজেলা ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে খুলনা থেকে ডুবুরী দল এসে ঘটনার দিন উদ্ধার কাজ শুরু করে পরে আজ সোমবার দুপুরে মনিকার মরদেহ উদ্ধার করে।

এবিষয়ে ভেড়ামাড়া উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আজিজুল হক জানান, রোববার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উপস্থিত হয় পরে খুলনা থেকে ডুবুরি দল এসে উদ্ধার কাজ শুরু করে পরে আজ সোমবার দুপুরে নিখোঁজ স্কুল ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করে দৌলতপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম জাবীদ হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নদীতে নিখোঁজ ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ আজ সোমবার বিকালে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.