মোক্তার হোসেন, পাংশা (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ঃ আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন ডিডিসি লিমিটেডের (ডেভলপমেন্ট ডিজাইন কনসালটেন্টস) সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবী ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিনের স্মরণে শুক্রবার (১৩ মে) বিকেলে তার নিজ হাতে গড়া কলিমহর জহুরুন্নেছা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। অমরাবতী সাহিত্য চর্চা কেন্দ্র এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অমরাবতী সাহিত্য চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি আনোয়ারা বেগমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে মরহুম ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিনের সহধর্মিনী ও ডিডিসি লিমিটেটের এমডি নিলুফার রফিক এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে মরহুম ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিনের কন্যা, ডিডিসি লিমিটেডের ডিরেক্টর ও কলিমহর জহুরুন্নেছা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি জেহরা জেরীন, জানিপুর ইউপির চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মজিদ ও কশবামাজাইল ইউপির চেয়ারম্যান শাহরিয়ার সুফল মাহমুদ বক্তব্য রাখেন।

অন্যান্যের মধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আলমগীর হোসেন, কলিমহর মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ রাশেদুল কবির, ডিডিসি লিমিটেডের কলিমহর প্রকল্পের কর্মকর্তা সুব্রত কুমার দে, সাংবাদিক মো. মোক্তার হোসেন, লুৎফর রহমান মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জামির হোসেন, সাজুরিয়া জেহরা জেরিন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল গফুর, গোপালপুর কলেজিয়েট স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. নিজাম উদ্দিন, বনগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ষড়জিৎ বিশ্বাস, ঈশ্বরদি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সন্তোস ঘোষ, কলিমহর জহুরুন্নেছা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রভাষক রমজান আলী, সহকারী শিক্ষক জীমুত বাহন বিশ্বাস ও লাইব্রেরিয়ান স্বপন কুমার মন্ডল প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিনকে উৎসর্গ করে স্বরচিত সংগীত পরিবেশন করেন কলিমহর জহুরুন্নেছা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক অনুরাধা বিশ্বাস। স্বরচিত কবিতা আবৃত্তি করেন সিরাজ উদ্দিন মেমোরিয়াল কিন্ডার গার্টেনের অধ্যক্ষ শারমিন সুলতানা। অনুষ্ঠানে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন মুফতি হাফেজ মো. আলী আকবর। অনুষ্ঠানে প্রফেসর সেতারা বেগম, কলিমহর ইউপির চেয়ারম্যান বিলকিছ বানু, কলিমহর জহুরুন্নেছা উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মো. মজিবর রহমানসহ স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিন সবসময় মানুষের কল্যাণের কথা ভাবতেন। এলাকার উন্নয়নের কথা ভাবতেন। তিনি নানা গুণে গুণান্বিত একজন আলোকিত মানুষ ছিলেন। তার শূন্যতা পূরণ হওয়ার নয়। আমরা তার অভাব অনুভব করছি।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নিলুফার রফিক ও বিশেষ অতিথি জেহরা জেরিন মরহুম ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিনের বিদেহী আত্মার মাগফিরাতের জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা করেন। তারা ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিনের জনকল্যানমূলক কাজের ধারাবাহিকতা বজায় রাখবেন বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এ ক্ষেত্রে সকলের সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করেন তারা।

প্রসঙ্গত ঃ এলাকার কৃতি সন্তান বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবী ইঞ্জিনিয়ার একেএম রফিক উদ্দিন গত ৩ মার্চ বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেন।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.