নিজস্ব প্রতিবেদক : কুষ্টিয়ায় অনিবন্ধিত প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধে অভিযান পরিচালনা শুরু করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। শনিবার বেলা সাড়ে ১০টায় জেলার কুমারখালি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এতে
৫টি প্রতিষ্ঠান বন্ধ ও ১টি ক্লিনিকে সতর্কীকরণ করা হয়েছে।

এরমধ্যে প্রতীক আধুনিক ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, প্রদীপ ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, বিশ্বাস ডেন্টাল কেয়ার, শিমুল ডেন্টাল কেয়ার, কুমারখালি ডায়াবেটিক সমিতি বন্ধ এবং নোভা ক্লিনিককে সতর্ক করা হয়।

কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ডাক্তার এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশেই জেলাজুড়ে অবৈধ প্রাইভেট হাসপাতালের তালিকা তৈরি করে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। যে সকল হাসপাতালের নিবন্ধন নেই, সেইসব হাসপাতালগুলোতে তালা ঝুলিয়ে সিলগালা করা হয়েছে। নিবন্ধন পাওয়ার পর তা চালু করার নির্দেশ দেওয়া হবে।

এখন পর্যন্ত জেলার কুমারখালি উপজেলার ৫টি প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে ও ১টি ক্লিনিকে সতর্কীকরণ করা হয়েছে। জেলাজুড়ে অবৈধ প্রাইভেট ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

অভিযানে এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আকুল উদ্দিন, স্থানীয় থানার (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার প্রমুখ।

স্বাস্থ্য বিভাগের দেওয়া তথ্য মতে, এ জেলায় ১৪০টি প্রাইভেট হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার রয়েছে। এর বাইরেও রয়েছে প্রায় শতাধিক ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার। আর যাদের অনুমোদন রয়েছে তাদের অনেকেরই লাইসেন্স নবায়ন করা হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.