জুয়েল রানা : কুষ্টিয়া ইবি থানাধীন আব্দালপুর ইউনিয়নের দেড়িপাড়া গ্রামে স্কুল ছাত্রী এক তরুণীকে জ্বীনে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়ার পর সারা রাত রেখে সকালে স্কুল গেটের সামনে গাছের নিচে রেখে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে ।

স্থানীয়রা জানান, গতকাল মঙ্গলবার ৩১ মে ঐ তরুণীকে সন্ধ্যায় কোচিং করে বাড়ি ফেরার পথে লক্ষিপুর-দেড়িপাড়া মাঠের মধ্যে থেকে তুলে নিয়ে যায় নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে । তার ভাষ্যমতে জ্বিন তাকে সারারাত শূন্যের উপর বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে ভোররাতে কুষ্টিয়া ঝিনাইদহ মহাসড়কের চলন্ত গাড়ির সামনে বারবার ফেলে দেয় ও গাড়ি তাকে আঘাত করার আগেই তুলে নেয়। পরে তাকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরি স্কুলের সামনে কুষ্টিয়া -ঝিনাইদহ মহাসড়কের গাছের নিচে অজ্ঞান অবস্থায় ফেলে গেছে।

এদিকে সে নিখোঁজ এর পর প্রথমে লোকজন ধারনা করেছিলো ক্যাম্পাসের কোন মেয়ে হবে। পরে তার চোখে মুখে পানি দিলে জ্ঞান ফিরলে জানা যায় ওই তরুণী ইবি থানাধীন আব্দালপুর ইউনিয়নের দেড়িপাড়া গ্রামের মেয়ে। ঐ তরুণী হরিনারায়নপুর গার্লস স্কুল এর নবম শ্রেণীর ছাত্রী।

পরে তাকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর সহ ইবি থানা পুলিশ উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। এ বিষয়ে তার পরিবার ইবি থানায় একটি মিছিং অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান রতন জানান, ঐ তরুণীকে আমরা ইবি ল্যাবরেটরি স্কুলের সামনে থেকে উদ্ধার করে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছি। ঐ তরুণীর সাথে ইতিপূর্বেও দুই বার একই ঘটনা ঘটেছে বলে তআর পরিবার জানিয়েছে।

এদিকে এঘটনার পর এলাকায় মুখরোচক আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.