নিজস্ব প্রতিনিধি: কুষ্টিয়া তথা সারাদেশেই প্রতিনিয়িত বাড়ছে সড়ক দুর্ঘটনা। তার মধ্যে অধিকাংশই মটরসাইকেল। মটরসাইকেল দুর্ঘটনায় যারা নিহত হন তাদের ৮৫% ই হেলমেট ব্যবহার করেন না।

মটরযান আইনে হেলমেট ব্যবহার না করলে তাকে জরিমানা গুনতে হয় ৩০০০ টাকা।

কুষ্টিয়া জেলা ট্রাফিক পুলিশ অবৈধ যানবাহন, ড্রাইভিং লাইসেন্স বিহীন চালকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় চলছে প্রতিনিয়ত শহরের বিভিন্ন জায়গায় চেক পোষ্ট।
গতকাল ০৮/০৬/২০২২ ইং তারিখে সকাল থেকে কুষ্টিয়া শহরের থানামোড়ে চলে অভিযান। অভিযানের নেতৃত্বে ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট নাজমুল সরদার। সরজমিনে দেখা যায়, ড্রাইভিং লাইসেন্স বিহীন চালকদের,হেলমেট বিহীন চালকের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। কিন্তু ব্যবস্থা নেয়ার চিত্রটা একটু ভিন্ন। হেলমেট বিহীন চালকের জরিমানার বদলে তাদের হেলমেট কিনে পড়িয়ে দিচ্ছেন কর্মরত এই পুলিশ সার্জেন্ট।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে পুলিশ সার্জেন্ট নাজমুল বলেন, কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার জনাব খাইরুল আলম স্যারের আদেশক্রমে, কুষ্টিয়া জেলা ট্রাফিক পুলিশের “টি আই” শাহ আলম স্যারের দিক নির্দেশনায়, আমরা কুষ্টিয়া জেলা ট্রাফিক পুলিশ সর্বদা যানজট নিয়ন্ত্রনে, অবৈধ যানবাহন, ড্রাইভিং লাইসেন্স বিহীন চালকদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। বেশির ভাগ মটরসাইকেল চালক হেলমেট ব্যবহার করেন না। তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে গেলে তারা খুব অনুরোধ করে। তখন খারাপ লাগে অনেক, কিন্তু নিজের দ্বায়িত্ব পালনের জন্য কঠোর হতে হয়, তারপরও প্রথমে চেষ্টা করি ভুক্তভোগীদের কাউন্সেলিং করতে।
তাই আজকে মটরসাইকেল চালক যারা হেলমেট পরিধান করেননি, তাদের জরিমানা না করে, সেই অর্থ দিয়ে হেলমেট কিনে তাদের পড়িয়ে দিলাম”।

সার্জেন্ট নাজমুল আরো বলেন, পুলিশ জনগনের বন্ধু। আমরা চাই সকলে নিরাপদে চলাচল করুক। সবাই হেলমেট ব্যবহার করুন। পুলিশের জন্য না হোক, নিজের ও নিজের পরিবারের প্রিয় মানুষদের কথা ভেবে হেলমেট ব্যবহার করুন”।

যানবাহন চালানোর সময় যানবাহনের বৈধ কাগজ পত্র, ড্রাইভিং লাইসেন্স, হেলমেট / শীট বেল্ট ব্যবহার করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান এই ট্রাফিক সার্জেন্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.